মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

দর্শনীয় স্থান

ক্রমিক নাম কিভাবে যাওয়া যায় অবস্থান
সুন্দরবন ঢাকা হতে বাস যোগে শ্যামনগর উপজেলা হয়ে মুন্সিগঞ্জ বাস ষ্ট্যান্ড অথবা বুড়িগোয়ালিনির নীললডুমুর হতে ফরেষ্ট অফিস হতে পাস গ্রহন করে নৌকা অথবা ট্রলার যোগে সুন্দববনে গমন।
ঝাপা বাওড় সড়ক পথে- ঢাকা থেকে ঢাকা-খুলনা জাতীয় মহাসড়কে যশোর অতিক্রম করে রাজার হাট নামক স্থান হতে সাতক্ষীরা রোডে প্রায় ১৪ কিঃমিঃ মণিরামপুর উপজেলা পরিষদ ।পরিষদ হতে রাজগঞ্জ বাজার সংলগ্ন ঝাপা বাওড় ১০ কি:মি: । যশোর পালবাড়ী থেকে রাজগঞ্জ বাসস্ট্যান্ড হয়ে ২২কিঃমিঃ দক্ষিণে রাজগঞ্জ বাজার সংলগ্ন ঝাপা বাওড়। খুলনা ও সাতক্ষীর হতে খুলনা-সাতক্ষীরা রোডের চুকনগর নামক স্থান হতে যশোর দিকে ২৬কিঃ মণিরামপুর উপজেলা পরিষদ। পরিষদ হতে রাজগঞ্জ বাজার সংলগ্ন ঝাপা বাওড় ১০ কি:মি: ।
দমদম পীরের ডিবি সড়ক পথে- ঢাকা থেকে ঢাকা-খুলনা জাতীয় মহাসড়কে যশোর অতিক্রম করে রাজার হাট নামক স্থান হতে সাতক্ষীরা রোডে প্রায় ০৭ কিঃমিঃ মণিরামপুর এর দিকে সড়ক সংলগ্র ভোজগাতী ইউপির অধীন।
কপোতাক্ষ নদ উপজেলা থেকে গরুঘাটার মোর থেকে মোটর সাইকেল কিংবা নসিমন যোগে যাওয়া যায়।
রাজা সীতারাম এর রাজপ্রাসাদ মাগুরা সদর হতে ২৮ কি.মি. দূরে মহম্মদপুর উপজেলায় রাজাবাড়ী নামক স্থানে রাজা সীতারাম রায়ের বাড়িটি অবস্থিত। মহম্মদপুর বাস স্ট্যান্ড হতে আধা কিলোমিটার উত্তরে পাকা রাস্তার পার্শ্বে রাজবাড়ির অবস্থান। রিক্সা, ভ্যান অথবা পায়ে হেটে যাতায়াত করা যায়।
হজরত পীর মোকাররম আলী শাহ (র:) এর দরগাহ মাগুরা জেলা শহর হতে ০৭ কিলোমিটার পশ্চিমে মাগুরা-ঝিনাইদহ বিশ্বরোডে ইছাখাদার ডান দিকে নবগঙ্গা নদীর তিরে হজরত পীর মোকাররম আলী শাহ (র:) এর দরগাহ অবস্থিত। বাস, টেম্পু ও ভ্যানযোগ যাতায়াত করা যায়।
ভাতের ভিটা মাগুরা জেলা শহর হতে প্রায় ১২ কিলোমিটার দক্ষিণে মঘি ইউনিয়নে ফটকী নদীর তীরে টিলা গ্রাম অবস্থিত। যশোর-মাগুরা সড়কে বাস ও ভ্যানযোগ যাতায়াত করা যায়।
নেংটা বাবার আশ্রম মাগুরা জেলা শহর হতে প্রায় ০১ কিলোমিটার পূর্বদিকে নবগঙ্গা নদীর দক্ষিণ তীরে অবস্থিত। রিক্সা ও ভ্যানযোগ যাতায়াত করা যায়।
সিদ্ধেশ্বরী মঠ মাগুরা শহর হতে ৩ কি.মি. উত্তরে আঠারখাদা গ্রামে নবগংগা নদীর তীরে সিদ্ধেশ্বরী মঠ। টেম্পু, রিক্সা ও ভ্যানযোগে যাতায়াত করা যায়।
১০ শ্রীপুর জমিদার বাড়ী মাগুরা সদর হতে উত্তরে ১৫ কি.মি. উত্তরে শ্রীপুর উপজেলা সদরে জমিদার বাড়ী অবস্থিত। মাগুরা হতে বাসযোগে শ্রীপুর স্ট্যান্ডে নেমে ১ কি.মি. শ্রীপুর-সাচিলাপুর রাস্তায় গেলে বামপার্শ্বে জমিদার বাড়ী।
১১ মদনমোহন মন্দির মাগুরা জেলা শহর হতে মাগুরা-নড়াইল সড়কে প্রায় ১৪ কিলোমিটার পূর্ব দক্ষিণ কোণে শত্রুজিৎপুর গ্রামে নবগঙ্গা নদীর তীরে মদনমোহন মন্দিরটি অবস্থিত। বাস, টেম্পু ও ভ্যানযোগ যাতায়াত করা যায়।
১২ কেরু এন্ড কোং চুয়াডাঙ্গা হতে বাস, অটো,যোগে যাওয়া যায়
১৩ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কুঠিবাড়ী কুষ্টিয়া শহর হতে রবীন্দ্রনাথ এর কুটি বাড়ির দূরুত্ব প্রায় ২০ কিলোমিটার। কুষ্টিয়া শহর হতে অটো রিক্সা, সিএনজি ও ইজি বাইক ও অন্যান্য বাহন যোগে সহজেই এবং খুবই কম খরচে শিলাইদহ কুটি বাড়ি যাওয়া যায়।
১৪ মহাকবি মাইকেল মধু সূদন দত্তের বাড়ি সড়ক পথে- ঢাকা থেকে ঢাকা-খুলনা জাতীয় মহাসড়কে যশোর অতিক্রম করে রাজার হাট নামক স্থান হতে সাতক্ষীরা রোডে প্রায় ৩৬ কিঃমিঃ কেশবপুর উপজেলা পরিষদ ।পরিষদ হতে কেশবপুর টু সাগরদাঁড়ী প্রায় ১৬ কি:মি: অতিক্রম করে মহাকবি মাইকেল মধুসূধন দত্তের পৈত্রিক জন্ম ভূমি।
১৫ সুলতান কমপ্লেক্স, নড়াইল ঢাকা থেকে সড়ক পথে আরিচা ফেরী পার হয়ে নড়াইল সদর ।
১৬ বাঁধা ঘাট ঢাকা থেকে সড়ক পথে আরিচা ফেরী পার হয়ে নড়াইল সদর ।
১৭ মধুপল্লী সড়ক পথে- ঢাকা থেকে ঢাকা-খুলনা জাতীয় মহাসড়কে যশোর অতিক্রম করে রাজার হাট নামক স্থান হতে সাতক্ষীরা রোডে প্রায় ৩৬ কিঃমিঃ কেশবপুর উপজেলা পরিষদ ।পরিষদ হতে কেশবপুর টু সাগরদাঁড়ী প্রায় ১৬ কি:মি: অতিক্রম করে মহাকবি মাইকেল মধুসূধন দত্তের পৈত্রিক জন্ম ভূমি।
১৮ ভরতের দেউল কেশবপুর উপজেলা সদর হতে ঊনিশ কি.মি দক্ষিণ-পর্ব দিকে ভদ্রা নদীর তীরে ভরতের দেউল অবস্থিত
১৯ মীর্জানগর হাম্মামখানা কেশবপুর হতে ৭ কি.মি. পশ্চিমে কপোতাক্ষী ও বুড়িভদ্রা নদীর সঙ্গমস্থল ত্রিমোহিনী নামক স্থানে
২০ মিয়ার দালান

সর্বমোট তথ্য: ৮২