মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

দর্শনীয় স্থান

ক্রমিক নাম কিভাবে যাওয়া যায় অবস্থান
বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ নূর মোহাম্মদ শেখ কমপ্লেক্স ঢাকা থেকে সড়ক পথে আরিচা ফেরী পার হয়ে কালনা ফেরি ঘাট হয়ে নড়াইল সদর আসতে চন্ডিবরপুর ইউনিয়নের নুর মোহাম্মদনগর। ঢাকা থেকে সড়ক পথে দুরত্ব ৩১০ কিঃমিঃ সময়-৫/৬ ঘন্টা।
মুক্তিযোদ্ধা গণ কবর চুয়াডাঙ্গা জেলা শহর থেকে বাস যোগে জীবননগর তারপর জীবননগর থেকে ৯ কিঃ মিঃ পাকারাস্তা রিকসা বা ভ্যান যোগে উথলী ইউনিয়নের মাধবখালী বটতলা হয়ে মাধবখালী মুক্তিযোদ্ধা কবরস্থান যেতে হয় ।
শরৱচন্দ্রের স্মৃতি বিজড়িত- কাশীপুর জমিদার বাড়ী চুয়াডাঙ্গা জেলা শহর অথবা জীবননগর উপজেলা থেকে বাস যোগে উথলী ইউনিয়নের সন্তোষপুর বাসস্ট্যান্ড তারপর সন্তোষপুর বাসস্ট্যান্ড থেকে ৭ কিঃ মিঃ পাকারাস্তা ভ্যান যোগে কাশিপুর জমিদার বাড়ী যেতে হয় ।
চিত্রা রিসোর্ট, সীমাখালী, নড়াইল। ঢাকা থেকে সড়ক পথে আরিচা ফেরী পার হয়ে নড়াইল সদর। ঢাকা থেকে সড়ক পথে দুরত্ব ৩১০ কিঃমিঃ সময়-৫/৬ ঘন্টা।
নিরিবিলি পিকনিক স্পট নড়াইল সদর থেকে লক্ষীপাশা বাসষ্ট্যান্ড যেতে লক্ষীপাশার কাছাকাছি হাতের বাম সাইডে এই স্থানটি অবস্থিত। তাছাড়া ঢাকা থেকে মায়া ফেরিঘাট এবং কালনা ফেরীঘাট পার হয়ে লোহাগড়া যেয়ে সোজা ১ এক কি:মি: সামনে অবস্থিত। যোগাযোগ: ০১৭১১০৭৪০৮৫
ইতনার বিশিষ্ট কথা সাহিত্যিক নীহাররঞ্জন গুপ্তের পৈত্রিক নিবাস লোহাগড়া উপজেলা পরিষদ হতে পূর্ব দিক দিয়ে কুন্দশী গ্রামের মাঝ দিয়ে একই সড়ক দিয়ে ইতনা গ্রামে অবস্থিত। বর্তমান অবস্থানঃ নড়াইল>লোহাগড়া>ইতনা গ্রাম (মহাময়া মঠ)। দূরত্বঃ লোহাগড়া হতে আনুমানিক ১০ কি: মি:
স্বাধীনতা স্মৃতিস্তম্ভ, নড়াইল ঢাকা থেকে সড়ক পথে আরিচা ফেরী পার হয়ে নড়াইল সদর । ঢাকা থেকে সড়ক পথে দুরত্ব ৩১০ কিঃমিঃ সময়-৫/৬ ঘন্টা
৭১-এর বধ্যভূমি, নড়াইল ঢাকা থেকে সড়ক পথে আরিচা ফেরী পার হয়ে কালনা ফেরি ঘাট হয়ে নড়াইল সদর, ঢাকা থেকে সড়ক পথে দুরত্ব ৩১০ কিঃমিঃ সময়-৫/৬ ঘন্টা।
নড়ইল কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার ঢাকা থেকে সড়ক পথে আরিচা ফেরী পার হয়ে নড়াইল সদর। ঢাকা থেকে সড়ক পথে দুরত্ব ৩১০ কিঃমিঃ সময়-৫/৬ ঘন্টা।
১০ বরেণ্য চিত্র শিল্পী এসএম সুলতানের সমাধি ঢাকা থেকে সড়ক পথে আরিচা ফেরী পার হয়ে নড়াইল সদর। ঢাকা থেকে সড়ক পথে দুরত্ব ৩১০ কিঃমিঃ সময়-৫/৬ ঘন্টা।
১১ শিয়েল পীরের মাজার চুয়াডাঙ্গা জেলা সদর থেকে ১.৫ কি: মি: দুরে দৌলতদিয়াড় গ্রাম সংলগ্ন শিয়েল পীরের মাজার অবস্থিত। রিক্সা/ভ্যান যোগে যাওয়া যায়।
১২ গড়াইটুপি অমরাবতী মেলা চুয়াডাঙ্গা শহর থেকে সরোজগঞ্জ বাজার তারপর ভ্যান যোগে তিতুদহ ইউনিয়নের গড়াইটুপি গ্রামে হযরত খাজা মালিক উল গাউস (রাঃ) এর মাজার অবস্থিত।
১৩ সাতক্ষীরার দর্শনীয় নলতা শরীফ সাতক্ষীরা জেলার অন্যতম একটি উপজেলা কালীগঞ্জ। এ উপজেলারই একটি গ্রাম নলতা। নলতা বাস স্ট্যান্ডেই এই মাজার শরীফের অবস্থান।
১৪ ঐতিহাসিক গির্জা শহর থেকে আনুমানিক দুরত্ব ৭৫ কিলোমিটার। রাস্তার নাম সাতক্ষীরা শ্যামনগর সড়ক (স্থান-শ্যামনগর)। স্পটে পৌছানোর ব্যয় ৬৫.০০ টাকা। ভ্রমণের জন্য পাওয়া যায় বাস ও ভ্যান।
১৫ গুনাকরকাটি মাজার প্রয়োজনীয় তথ্য শহর থেকে আনুমানিক দুরত্ব ৩৫ কিলোমিটার। রাস্তার নাম সাতক্ষীরা-আশাশুনি-দরগাহপুর সড়ক। স্পটে পৌছানোর ব্যয় ৪০ টাকা। ভ্রমণের জন্য পাওয়া যায় বাস, বেবী টেক্সি রিকসা, ভ্যান
১৬ জোড়া শিবমন্দির প্রয়োজনীয় তথ্য শহর থেকে আনুমানিক দুরত্ব ৮ কিলোমিটার। রাস্তার নাম ছয়ঘড়িয়া সড়ক। স্পটে পৌছানোর ব্যয় ২০ টাকা। ভ্রমণের জন্য পাওয়া যায় বাস/রিকসা/ ভ্যান।
১৭ তেঁতুলিয়া জামে মসজিদ শহর থেকে আনুমানিক দুরত্ব ২৫ কিলোমিটার। রাস্তার নাম তালা -পাইকগাছা সড়ক। স্পটে পৌছানোর ব্যয় ৩৫ টাকা। ভ্রমণের জন্য পাওয়া যায় বাস, বেবী টেক্সি রিকসা, ভ্যান।
১৮ শ্যামসুন্দর মন্দির প্রয়োজনীয় তথ্য শহর থেকে আনুমানিক দুরত্ব ৪৫ কিলোমিটার। রাস্তার নাম ।সাতক্ষীরা-যশোর সড়ক, কলারোয়া-সোনাবাড়ীয়া সড়ক স্পটে পৌছানোর ব্যয় ।৬০ টাকা ভ্রমণের জন্য পাওয়া যায় বাস, বেবী টেক্সি রিকসা, ভ্যান।
১৯ সোনাবাড়িয়া মঠ মন্দির কলারোয়া উপজেলার সীমান্তবর্তী একটি জনপদ সোনাবাড়িয়া। ২শ’ বছর আগের গোটা সোনাবাড়িয়াজুড়ে জমিদার শাসনের নিদর্শন ছড়িয়ে আছে। এমনই এক প্রাচীন ঐতিহ্যের ধারক সোনাবাড়িয়া মঠ মন্দির। প্রায় ৬০ ফুট উঁচু টেরাকোটা ফলক খচিত শ্যামসুন্দর মন্দিরটি আজও দাঁড়িয়ে আছে প্রাচীন স্থাপত্যের অনুরূপ নিদর্শন হয়ে
২০ পি,টি,আই (Primary Training Institute) পি.টি.আই এর দুরত্ব জেলা পরিষদ থেকে ৫ কি:মি: উপজেলা: পরিষদ থেকে ১৩ কি:মি:। আলমডাঙ্গা উপজেলা সদর থেকে ট্রেন, বাস, অটোবাইক, নসিমন, করিমন ইত্যাদিতে পি.টি.আই (Primary Training Institute) এ যাওয়া যায়। এর প্রাকৃতিক পরিবেশ বড়ই মনোরম। বিভিন্ন স্থানের স্কুল-কলেজের ছাত্র-ছাত্রীরা পিকনিক স্পট হিসেবে এখানে আগমন করে থাকে।

সর্বমোট তথ্য: ৭১